উদ্যোক্তা হিসেবে আত্ন প্রচার কৌশল

ব্যবসায়ের প্রচার ও প্রসারের জন্য উদ্যোক্তা হিসেবে আপনার কোন না কোন পথ খুজে বের করতে হবে। এখন আমি কথা বলছি যারা নিজেকে এবং তার ব্যবসায়কে প্রচার করতে অস্বস্তি বোধ করেন। এটি গুরুত্বপূর্ণ, কারণ আপনার ও আপনার ব্যবসায়ের প্রচার কৌশল অজানা থাকলে, তা শুধু মুনাফাই কমাবে না বরং আপনার কোম্পানির সকলকে ব্যথিত করবে। আজকের আর্টিক্যালটিতে আলোচনা করবো কিভাবে উদ্যোক্তা হিসেবে সেল্ফ প্রমোট করতে হয়। হতে পারে আপনার, আপনার ব্যবসায়ের, আপনার ক্লায়েন্টের, আপনার পণ্যের, আপনার ভেন্ডরের অথবা অন্য যে কোন কিছু।

মূল আলোচনায় যাওয়ার আগে, আমি আমেরিকার প্রেসিডেনশিয়াল ক্যান্ডিডেট ডোনাল্ড ট্রাম্প, হিলারি ক্লিনটন, গ্যারি জনসন এবং জিল স্টেইনদের নিয়ে একটু কথা বলতে চাই।

আমি যদি জানতে চাই জিল স্টেইনকে কতো জন চিনেন? আমি নিশ্চিত ৯০ শতাংশ লোক বলবেন তাকে চিনেন না। যদি বলি গ্যারি জনসন এর কথা? ২০ শতাংশ লোক চিনতে পারেন। এখন যদি বলি হিলারি কে আর ডোনাল্ড ট্রাম্প কে? আমি নিশ্চিত ৯৯ ভাগ লোক তাদের চিনতে পারবেন। কারণটা জানেন? কারণ হলো তারা নিজেদের প্রমোট করতে জানে।

স্টেইন ও জনসন সেল্ফ প্রমোশন জানে না। আবার তার মানে এই না যে তাদের বিতর্ক দুর্বল ছিলো। এর অর্থ হলো ট্রাম্প ও হিলারি সেল্ফ প্রমোশনের ব্যাপারে বেশি সচেতন ছিলো।

কিছু পরিসংখ্যান উল্লেখ করতে দিন:

  • গ্রীন পার্টির পদপ্রার্থী জিল স্টেইন এর টুইটার অনুসারি ২৬৯,০০০
  • লিবার্টারিয়ান দলের প্রার্থী গ্যারি জনসনের টুইটার ফলোওয়ার ৩৪৫,০০০
  • ডেমোক্রেট পার্টির প্রার্থী হিলারি ক্লিনটনের টুইটার ফলোওয়ার ১৯.২ মিলিয়ন
  • রিপাবলিকান দলের পদপ্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের টুইটার ফলোওয়ার হলো ৪১ মিলিয়ন

ব্র্যান্ড হিসেবে মার্কেটে ডোনাল্ড ট্রাম্প হলো সবচেয়ে উত্তম প্রমোটার। এখন সবখানেই আপনি ট্রাম্প ব্র্যান্ড দেখতে পাচ্ছেন। ব্যক্তিগতভাবে তাকে পছন্দ করুন বা না করুন, তার থেকে অনেক কিছু শিখার আছে।

সেল্ফ প্রোমোশনের কৌশলে যুক্ত করেছেন নিজস্ব স্লোগান। মুহাম্মাদ আলী ছিল শতাব্দীর সর্বসেরা এ্যাথলেট। তার স্লোগান ছিলো: “আই এ্যাম দ্য গ্রিটেস্ট” ।

এ্যাপল সেল্ফ-প্রোমোট করে। স্লোগান হলো- “থিংক ডিফরেন্ট”।

নাইক সেল্ফ-প্রোমোট করে। স্লোগান- “জাস্ট ডু ইট”।

”আই এ্যাম দ্য গ্রিটেস্ট” বলতে গাটস এর দরকার। দরকার অদম্য সাহসিকতার। কিন্তু, আপনার দরকার তার থেকেও বেশি। কারন, ব্যাক আপের ব্যবস্থাও করে রাখতে হবে। ইন্ট্রোভার্ট অনেকেই সেল্ফ প্রোমোট করতে চায় না, কারণ তারা বুলশিটার হিসেবে উপস্থাপন করতে ভয় পায়। কিন্তু এ নিয়ে দুঃশ্চিন্তার যুক্তি নেই। আপনি যদি জানেন কিভাবে ডেলিভার করতে হবে, তো নিজেকে প্রোমোট করুন।

সেল্ফ প্রোমোট ফর্মুলা জানতে বই পড়তে থাকুন আর জানুন কিভাবে এটা করতে হয় । যখন বাইরে বের হন ও প্রোমোট করেন তখন নিজেকে যেন অস্বস্থিকর মনে না হয়।

আসুন মূল আলোচনায় যাই, উদ্যোক্তা হিসেবে কিভাবে সেল্ফ প্রোমোট করতে হয়।

লজ্জাহীন হন

সেল্ফ প্রোমোশন করতে চাইলে লজ্জা পাওয়া যাবে না, এটাই প্রথম নীতি। সেল্ফ প্রোমোশনে আনকমফোর্টেবল ফিল করা যাবে না। আমি গ্যারান্টি দিতে পারি, আলী লজ্জাহীন ছিলো, মেয়ওদার লজ্জহীন ছিলো, নিউইয়র্ক য়াংকির মালিক স্টেইব্রেনার লজ্জহীন ছিলো, নাইকির ফিল নাইট লজ্জাহীন ছিলো,ট্রাম্প, হিলারি ক্লিনটন। গ্যারি জনসন ও জিল স্টেইন কিছুটা লাজুক কিন্তু বিশ্বের অন্য লোকদের থেকে কম। লজ্জা ত্যাগ করতে হবে, অন্যথায় কেউ জানবেই না আপনি কে, কী করছেন।

লজ্জা ত্যাগ করতে না পারার কারন হলো, যখন ফেইল করি, নাকাল বা অপমানিত হই; তখন অস্বস্থি বোধ করি। ফেইল করলে, অপমানিত হলে কী হবে। জানেন কাদেরকে লোকজন অপমান করে না, পিছু কথা বলে না? যাদেরকে তারা চিনে না, যাদের সম্পর্কে তারা জানে না।

আপনিই আমাকে বলেন, ট্রাম্পের সাথে যা হয়েছে তার থেকে অপমানের আর কী হতে পারে? হিলারি ক্লিনটনের সাথে যা হয়েছে তার থেকে আর বেশি কী হতে পারে? আলী বলেছিলো, আমি ফ্রেযারকে হাড়াবো এবং নক আউট করবো, কিন্তু ফ্রেযারই অবশেষে আলীকে নক আউট করে দিলো। এর থেকে অপমান আর কী হতে পারে?

আপনাকে মূল্যায়ন করা হবে সর্বশেষ বিজয়ের উপর ভিত্তি করে

আপনি ততোটাই ভালো যতোটা ভালো ছিলেন সাম্প্রতিক বিজয়ের সময়। মানে টা একটু বর্ণনা করছি। যদি ৩০ বছর আগের কোন উল্লেখযোগ্য অর্জনের কথা এখন বলেন তাহলে আপনি আল বানডি। আল বানডি হলো একটি টিভি শো “ম্যারিড উইথ চিলড্রেন” এর প্রধান স্টার। সে সবসময় তার স্কুল জীবনের ঘটনা শেয়ার করতো। পঞ্চাশ বছর বয়সে এসে স্কুলের চ্যাম্পিয়নশিপ নিয়ে গল্প করলে কাজ হবে না।

অনেকেই আল বানডির মতো গল্প করে। এরকম করবেন না। ২০ বছরের মধ্যে অর্জিত সাম্প্রতিক অর্জনগুলো লোকজনকে জানান। তবে যদি আপনি দাদা হয়ে নাতি-নাতনীর সাথে ছেলে বেলার গল্প বলেন, সেটা ব্যতিক্রম।  যদি শিকারে নামেন, প্রবৃদ্ধির দরকার, প্রতিযোগিতায় জয় লাভ করতে চান, আপনাকে সাম্প্রতিক ঘটনা বলতে হবে।

অনুমান বা ভবিষ্যতবাণী করুন

সেল্ফ প্রোমোশনের আরেকটি পন্থা হলো ভবিষ্যতবানী করা। এভাবে বলুন, আমার পূর্বানুমান হচ্ছে,_________ঘটতে যাচ্ছে। যেমন, প্যাট্রিক বেট ডেভিড একটি ভিডিও পোস্ট করেছিলেন টুইটারের ভবিষ্যত নিয়ে অনুমান করে। হয়তবা আমি পুরোপুরি ভুল বলছি, তবে আমি যতোটুকু রিসার্চ করেছি, আমার মনে হচ্ছে টুইটারের কিছু একটা হতে যাচ্ছে। তাদের মূল্যায়ণ হয়তো বা ততোটা আর থাকবে না। কারন, একটা সময় টুইটারের মূল্য ছিলো ৪০ বিলিয়ন ডলার আর এখন কেউই ১০ বিলিয়ন দিয়ে কিনতে চাচ্ছে না।

সুতরাং, স্বতঃলব্ধ জ্ঞান ও রিসার্চ থেকে কিছু প্রেডিক্ট করুন। কেন গুরুত্বপূর্ণ? যদি মিলে যায়, তাহলে আপনার বিশ্বাসযোগ্যতা বাড়বে। তবে এটা অবশ্যই খেয়াল রাখুন, প্রেডিকশনটা যেন নন-সেন্স ‍স্টুপিড মতবাদের ভিত্তিতে না হয়।

রিয়েল এস্টেট ডেভেলপারদের ভবিষ্যত সম্পর্কে অনুমান করতে হয়। স্টক ব্রোকাররাও তা-ই করেন। তো, ভবিষ্যত অনুমান করতে ভয় পাবেন না। পেশাগত ইন্ডাস্ট্রি নিয়ে গবেষণা করুন ও ভবিষ্যতের সম্ভাব্য ফলাফল শেয়ার করুন।

নেম ড্রপিং বা বিখ্যাত ব্যক্তিদের নাম উল্লেখ করা

অনেকের নেম ড্রপিং কৌশলটা এমন হয়, যা হিতের বিপরীত ফল বয়ে আনে। বিরক্তিকর ও নিজেই বিপদে পড়ে। সরল কথা হলো, যাকে আপনি জানেন না তার নাম উল্লেখ করবেন না। ধরুন কোন এক সেলিব্রিটি কে আপনার বন্ধু বলে প্রচার করলেন। শুধুমাত্র আপনি তার সোস্যাল মিডিয়া ফলোওয়ার এবং তার কোন এক অনুষ্ঠান, সভা, সেমিনারে অংশগ্রহণ করেছেন। এটা করবেন না। এতে আপনার বিশ্বাসযোগ্যতা হাড়াবে।

উত্তম পন্থার একটা উদাহরণ দিচ্ছি। জানেন, আপনাকে দেখলে আমার অমুকের (কোন সুপরিচিত ব্যক্তি) কথা মনে পড়ে যায়- এটা অনেক ভালো লাগে। কিছু দিন আগে একটি সেমিনারে ভলানটিয়ারিং করছিলাম। সেই সুবাদে অমুকের সংগে কাজ করার সুযোগ পাই। এবং একটি ওযার্কশপ হয়। তার সাথে ভ্রমণ করেছি। সুন্দর এক অভিজ্ঞতা হলো। আপনার ও তার মাঝে অনেক মিল রয়েছে। তিনি আপনার সম্পর্কে অনেক গুনগান করেছেন। আপনার সাথে সাক্ষাত করতে পেরে আমি আনন্দিত।

এখানে কানেকশন রয়েছে। এখন যদি সে ফিরে যায় এবং বুঝতে পারে যে আপনি মিথ্যে বলেছেন, আপনি বিশ্বাসযোগ্যতা ও সম্পর্ক হাড়াচ্ছেন। কিন্তু যদি সে সব কিছু সত্য পায়, তাহলে আপনার গ্রহনযোগ্যতা বেড়ে যাবে। সে আপনাকে মনে রাখবে উল্লেখিত সেলিব্রিটির পরিচিত ব্যক্তি হিসেবে।

যদি এই গল্পটি না শেয়ার করেন, তাহলে সেল্ফ প্রোমোট করার একটা সুযোগ হাত ছাড়া করলেন।

বুক ড্রপিং

উল্লেখ করার আরেকটি উপায় বই এর নাম রেফার করা। বুক ড্রপিং ভালো উপকারি হবে যদি বইটি ভালো করে পড়া থাকে। মনে করুন কোন একটি সেমিনার বা মিটিং এ কোন এক সমস্যার সমাধানে আপনি বললেন, ”আমার পড়া বই গুলোর মধ্যে এটি একটি বই। বইটি এই সমস্যা নিয়ে আলোচনা করেছে। সর্বশেষে যে সমাধান টা উপদেশ দেয়া হয়েছে আমি সেটাই এখানে প্রয়োগ করছি। আপনারা চাইলে বইটি পড়ে দেখতে পারেন।” যদি কোন বই পোকা থাকে সাথে সাথে বইটির নাম লিখে নিবে এবং আপনাকে স্বশিক্ষিত হিসেবে মনে রাখবে। আপনার বড় ডিগ্রি থাক বা না থাক কোন ব্যাপার না।

আপনি যে বিষয়ের দক্ষ, তার উপর শক্ত অভিমত দিন

সেল্ফ প্রোমোশনের পরবর্তী পন্থা হলো এক্সপারটিস ফিল্ডের উপর শক্ত মতামত ব্যক্ত করা। যেমন, আপনি বলতে পারেন, মার্কেট যে অবস্থানে যাচ্ছে তার সাথে আপনি একমত নন অথবা মার্কেট লিডাররা কী কী ভুল করছে। উত্তম মাধ্যম হলো নিজের ব্লগ, ভিডিও ব্লগ অথবা পডকাস্ট।

উপসংহারে বলতে চাই, অতিরঞ্জন করবে না- অতিরিক্ত মাত্রায় কোন কিছু বাড়িয়ে বলবেন না। এটা বিরক্তিকর। কোন বন্ধুর সাথে ঘুরতে গেলন, আপনার বন্ধু অবিরত তার গুনগান গেয়েই যাচ্ছে। আপনাকে আর কিছু বলতে দিচ্ছে না। ৮০% সময় তার কথা শুনেই কাটছে। আপনি নিশ্চয়ই তা পছন্দ করবেন না? কেউই করবে না। এবং এর দ্বারা তার নিরাপত্তাহীনতা প্রকাশ পায়। সে তার ভয় ও নিরাপত্তাহীনতাকে লুকানোর চেষ্টা করছে।

আমার বার্তা পরিষ্কার। উপরে যান, আরটিক্যালটি আবার পড়ুন কিছু নোট লিখে নিন। সিদ্ধান্ত নিন আপনি কোন ধরনের ব্র্যান্ড গড়ে তুলতে চান। এমন উদ্যোক্তা হবেন না যে সেল্ফ প্রোমোট করে না। কারন, অনেক সুযোগ হাত ছাড়া হবে যদি তা না করেন।

আপনার গুরুত্বপূর্ণ মতামত, চিন্তা, প্রশ্ন বা উপদেশ নিচে কমেন্টে বলুন।

 

Spread the love

Comments

comments

Leave a Reply