শুধু ব্যবসায় শুরু করবেন না, সমস্যার সমাধান করুন

ভোক্তাদের অনেক সমস্যা থাকে, এবং তারা এগুলোর সমাধান খুজতে থাকে। প্রতিদিনের কাজগুলো মানুষ আরও ভালো, দ্রুত এবং স্মার্টভাবে সম্পন্ন করতে চায়। সৌ্ভাগ্যবশত উদ্যোক্তাদের জন্য, বর্তমানে বাজরে প্রচলিত পণ্যে উন্নয়ন ঘটানোর অনেক জায়গা রয়ে গেছে। এমনও বলতে শোনা যায় যে, সবচেয়ে কঠিন কাজটি হলো সমস্যা খুজে বের করা এবং যথেষ্ট সমাধান তার সাথে জুড়ে দেয়া। এখানে কিছু বিষয় গভীরভাবে লেখা হলো।

# অবশ্যই-সুন্দর-নয় পণ্যের উপর নজর দিন: ভোক্তাগন প্রতিদিনের প্রয়োজনের অভ্যাসে নিমজ্জিত। বহু-কাজের যুগে মানুষের মনোযোগ এখন ছোট হয়ে আসছে; খুবই অল্প পরিমান পন্য কিনতে গিয়ে তারা যাচাই বাছাই করে। তাদের জীবনের দ্রুততা এবং প্রয়োজনীয়তা পরিপূর্ণ-সন্তুষ্ট হওয়ার আকাংখা কঠিন করে দিচ্ছে। যেহেতু ভোক্তা প্রচলিত পণ্যের চেয়ে বেশি প্রত্যাশা করে, সেহেতু আপনাকে যা করতে হবে; ব্যতিক্রম ও বর্তমান পন্যটির চেয়ে উন্নত কোন পন্য আবিষ্কার করতে হবে।

# প্রকৃত বেদনাদায়ক/কষ্টসাধ্য সমস্যার সমাধান করুন: গুগল সবচেয়ে ভালো সার্চ করতে পারে। আমাজন অনলাইন কেনা কাটাকে সহজ করে দিয়েছে। ইউবার চেষ্টা করছে সবচেয়ে ভালো গাড়ি বানাতে। আপনি সবচেয়ে ভালো এবং স্মার্টভাবে কী বানাতে পারেন?

বেদনাদায়ক/কষ্টকর কোন কাজটি আপনি প্রতিকূলতা ব্যতিত সমাধান করতে পারেন? ক্রেতার মনোযোগ আকর্ষনের জন্য তাদের প্রয়োজনীতার সমাধান করুন। যদি দৈনন্দিন জীবনে প্রয়োজন এমন কোন পণ্য আপনার না থাকে, আপনার উচিত প্রয়োজনীয়তা আবিষ্কার করে একে আবার বাজারে ছাড়া। যদি কোন সমস্যা আবিষ্কার করতে পারেন যা আপনি সমাধান করতে এবং বাজারে ডেলিভার করতে পারবেন, প্রকৃত ব্যবসায় আপনিই করতে পারবেন যা মূল্য বহন করবে।

# আপনার ব্যবসায়কে আসক্তিতে পরিনত করুন: অনেক উদ্যোক্তাকে দেখা যায়, যারা কোন সমস্যা সমাধানের জন্য আসক্তিতে পরে যায়। যেহেতু, ব্যবসায় শুরু করা হলো একটি অধ্যবসায়ের বিষয়; তাই একজন উদ্যোক্তা হিসেবে আপনার অনুপ্রেরনা, প্রতিশ্রুতি, লেগে থাকা এবং উদ্যম এর দরকার পরবে।

২০১৩ সালের এমআইটি বক্তৃতায় ড্রপবক্স সহ-প্রতিষ্ঠাতা বলেছিলেন; “আমার জানামতে সবচেয়ে সুখি এবং সফল ব্যক্তি যা ভালোবাসেন তা ই করেন না, তারা গুরুত্বপূর্ণ সমস্যার সমাধান খুজে বের করতে আত্মনিমগ্ন থাকেন।”

গভীর প্রণয়ের সাথে কাজ করতে পারলে মুল্যবান কিছু বের করা যাবে। যদি আপনি এমন কিছু করতে না পারেন, তবে আপনার ব্যবসায় করতে আসার দরকার নেই। প্রকৃত প্রয়োজনীয় পন্যের বাজারজাত করন সহজ হয়। কারন, আপনাকে এ বিষয়ে তাদেরকে তেমন উপলব্ধি করানো লাগবে না এবং নিজেরাই তাদের সমস্যা সম্পর্কে সচেতন থাকে।

আশা করি আপনি এমন ব্যবসায় চালু করবেন না যা কিছু দিন পর আর বাজারে টিকতে পারবেনা। বাসার কাজ করুন, আইডিয়া যুক্তিসহ যাচাই করুন এবং নিশ্চিত করুন যে আপনার আইডিয়ার একটা বাজার আছে। প্রচলিত আছে এমন কোন ব্যবসায় চোখ বন্ধ করেই শুরু করে দিবেন না, আপনার সফলতাকে এগিয়ে নিতে পারে এমন কোন প্রকৃত সমস্যার সমাধান খুজে বের করুন।

Spread the love

Comments

comments

Leave a Reply