সকালের পাচটি কাজ পুরো দিনটি সৃজনশীল রাখবে

অনেকেই সপ্তাহে ৪০, ৫০ এমনকি ৬০ ঘন্টারও বেশি কাজ করে থাকি। কিন্তু অনলাইন বিনোদন, অফিসে হাল্কা জলখাবার এর অভ্যাস এবং অপরিকল্পিত সময় ব্যবস্থাপনার কারনে ভালো মানের কাজকে আমরা এলোমেলো করে ফেলছি।

এখানে অনুশীলন করার মতো পাচটি পদক্ষেপ নিয়ে আলোচনা করা হবে যা প্রতিদিনের রুটিন কাজের সাথে সংযোগ স্থাপন করবে এবং উৎপাদনমুখী করবে।

সাত মিনিট অনুশীলন

১০ নয়, শুধু সাত মিনিট। কেন? সময়টা খুবই কম কিন্তু দিনের অন্য কাজগুলোকে তেমন প্রভাবিত করবেনা এবং রাতের যে কোন ঢিলেমি দুর করার জন্য যথেষ্ট সময়। নিজেকে ফিটফাট রাখার অনেক অনুশীলন আছে, কিন্তু বিশেষজ্ঞগন সাত মিনিটের অনুশীলনটিই পছন্দ করেন বেশি।

সবুজ খাবারের সাথে দিন শুরু করুন

আমরা শুনে থাকি যে, সকালের নাস্তা হলো দিনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ন খাবার। এবং খুব সহজে এক বাটি শস্যদানা, ডিম, স্যান্ডউইচ এবং এক কাপ দই আহার করেও বিপাকপূর্ন যাত্রা শুরু করতে পারি। পছন্দগুলো একবার সেট করতে পারলে সবুজ সতেজতা দেখে আপনি নিজেই অবাক হবেন। এতে অল্প সময়ে সরস ও সুস্বাস্থ্যের সাথে শুরু করা যায়।

থ্রেডআপ ডটকমের সহ-প্রতিষ্ঠাতা জেমস রেইনহাট প্রতিদিন একটি আপেল, একটি কলা, একটি কমলা, একটু শব্জি, অর্ধেকটা ক্ষিরা, যে কোন জুস অথবা ডাবের পানি, এবং একটু আইস ক্রিম হজমের মধ্য দিয়ে শুরু করেন। ইহা সস্তা, সহজ এবং শক্তিশালী।

তিনটি শ্রেষ্ঠ বিষয় নিন যা এই দিনে অর্জন করতে চান

প্রিয়জনের সাথে সান্ধ্য আলোচনার জন্য বিষয় সেট করুন যে, আপনার দিনটি কেমন গেলো। দিনটি সফল করার লক্ষ্যে, পরবর্তী ১২ ঘন্টায় কী করবেন তা সিদ্ধান্ত নিয়ে নিন। অবশ্যই আপনি প্রতিদিন সফল হতে পারবেন না, কিন্তু ইহা উন্নতির দিকে নিয়ে যাবে।

অর্জন করতে ক্যালেন্ডার ব্যবহার করুন

সাধারন ভুলগুলোর মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভুল হলো, সময়বান্ধব ক্যালেন্ডার বা টু-ডু লিস্ট অনুসরন না করা। যারা এভুলগুলো করে, কাজগুলোকে সঠিক সময়ে শেষ করতে ব্যর্থ হয়।  একটু বড় কাজের জন্য সময় নির্ধারন করে নিন এবং নিশ্চিত ভাবে সফল হবার জন্য ৩৩% সময় অতিরিক্ত বরাদ্দ দিন।

যখন বিপথে চলে যাবেন, সাথে সাথে আপনার কোন কাজটি করা দরকার তা এই পদ্ধতির মাধ্যমে নির্বাচন করতে পারবেন।

দুপুরের খাবারের পর কর্মশক্তি যোগ করুন

দুপুরের খাবারের পর ১৫ মিনিট সময় নিন, কম্পিউটারটা বন্ধ করে দিন এবং একধরনের পফেশনাল মেডিটেশন করে আসুন। কনফারেন্স রুমে বসে নির্ধারন করুন দিনের বাকিটা সময়ে আপনার হাতে আর কী কী কাজ রয়েছে। যেভাবে লিস্ট তৈরি করেছিলেন সেভাবে কাজ চলছে কিনা একটু যাচাই করুন। বিপথগামী হলে, তার কারন বের করুন। এভাবে একটি উৎপাদনমুখী ও সফল দিন অতিবাহিত করতে পারেন।

এই সহজ ফরমুলাটি এক সপ্তাহের জন্য চেষ্টা করুন। দেখবেন ফলাফল দেখে খুবই খুশি হয়েছেন।

Spread the love

Comments

comments

Leave a Reply